10 December- 2019, 5:19 am ।। ২৬শে অগ্রহায়ণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

বেতাগীতে গলাকাটা লাশের পরিচয় মেলেছে, গ্রেফতার ৩

শফিকুল ইসলাম ইরানঃ

বরগুনার বেতাগীতে আলোচিত হত্যাকান্ড মাথাবিহীন লাশের পরিচয় সনাক্ত করতে স্বক্ষম হয়েছে বেতাগী থানা পুলিশ, গ্রেফতার করেছে প্রধান আসামী সহ সংশ্লিষ্ট আরো দুই জনকে। পুলিশ সূত্রে জানাগেছে, নিহত বাক্তির নাম মো: বাবুল শেখ, তিনি মাদারীপুরের রাজৈর উপজেলার বাসিন্দা ।

উল্লেখ্য যে, বিগত ১৫ অক্টোবর রোজ সোমবার সন্ধ্যার পর বেতাগী উপজেলার সদর ইউনিয়নের কিসমত করুনা গ্রামে এক মাথাবিহীন অজ্ঞাত যুবকের লাশ উদ্ধার করেন বেতাগী থানা পুলিশ। ঘটনার সময় শরীর থেকে মাথা বিচ্ছিন্ন ও অজ্ঞাত থাকার কারনে পরিচয় সনাক্ত করা সম্ভব হয়নি বলে জানিয়েছিলেন বেতাগী থানা পুলিশ। তবে শুধুমাত্র সোমবার সন্ধ্যা আনুমানিক ৭টা থেকে রাত ৯ টার মধ্যে ঘটনাটি ঘটেছে এমনটাই ছিল পুলিশের ধারণা।

বরগুনা পুলিশ সুপার মো: মারুফ হোসেনের দিক-নিদের্শনায় হত্যাকান্ডের কারন ও রহস্য খুজে বের করার জন্য বেতাগী থানার অফিসার ইনচার্জ মো:কামরুজ্জামান মিয়া ও তদন্ত কর্মকর্তা মো: হুমায়ূন কবিরের নের্তৃত্বে মাঠে নামে বেতাগী থানা পুলিশ। এক পর্যায়ে তদন্তের তিন দিনের মধ্যে ঘটনাস্থল থেকে এক কিলোমিটার উত্তওে খুজে পাওয়া হয় শরীর থেকে বিছিন্ন মাথা এবং তদন্ত প্রক্রিয়া সফল হলে উঠে আসে এ নির্মম হত্যাকান্ডের বিস্তারিত তথ্য।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, মাদারীপুর জেলার রাজৈর উপজেলার কোদালিয়া বাজিতপুর গ্রামের মৃত মোবারক আলী শেখ এর পুত্র হত্যার শিকার বাবুল শেখ (৪৮)। জীবিকার মাধ্যম ছিল কৃষিকাজ ও খুচরা ব্যবসা। হত্যার শিকার বাবুল শেখ এর একই এলাকার রাজমিস্ত্রী ইকবাল বয়াতী ঢাকায় অবস্থান করায় এবং নিজ স্ত্রী প্রবাসে থাকার সুবাদে বাবুল শেখ ইকবালের স্ত্রী আসমা বেগম’র সাথে অবৈধ সম্পর্ক গড়ে তোলে।একই সাথে অনেকটা আর্থিক লেনদেনের সর্ম্পকও ঘটে। এতে ক্ষুব্দ হয়ে ঘটনার তিন দিন আগ থেকে ইকবাল বয়াতি তার শ্বশুর বাড়ি বেতাগীর কিসমত করুনা গ্রামে অবস্থান করে। কৌশলের আশ্রয় নিয়ে স্ত্রী আসমা বেগমকে নানা ধরণের ভয়ভীতি দেখিয়ে তাকে দিয়ে বাবুল শেখ কে বেতাগীতে ডেকে নিয়ে আসে ও হত্যা করে।

আসামীদের গ্রেফতারের পর (৩০২ ধারায়) অজ্ঞাত হত্যা মামলার বাদী এস আই আমিনুল ইসলাম এঘটনায় জড়িত থাকা আসমা বেগম (৩০) ও তার ননদ লাকী বেগম (২৬), ভাই জুয়েল কে জেল হাজতে প্রেরণ করে। উলেখ্য যে গ্রেফতারকৃত আসামী তিনজনই বেতাগীর কিসমত করুণার বাসিন্দা। আর ইকবাল বয়াতী পালিয়ে থাকায় পুলিশ তাকে গ্রেফতারের চেষ্টা চালাচ্ছে। বেতাগী থানার অফিসার ইনচার্জ মো: কামরুজ্জামান মিয়া যুগান্তরকে বলেন, লাশের সঠিক পরিচয় পাওয়া গেছে। এঘটনায় ইতোমধ্যে ৩ জনকে গ্রেফতার করে জেলা হাজতে পাঠানো হয়েছে। নারী ঘটিত কারনে এ হত্যাকান্ড সংঘটিত করা হয়েছে। বাকি অপরাধীদের গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে। ঘটনার মাত্র আটদিনের মধ্যে থানা পুলিশের এমন কৃতিত্বপূর্ণ তথ্য উৎক্ষেপণ কর্মকান্ডে ধন্যবাদ জানিয়েছে, বরগুনা পুলিশ সুপার মো: মারুফ হোসেন।

Sharing. . . .




More News Of This Category


সংবাদ শিরোনামঃ
  Icone সাবেক রাষ্ট্রপতি এরশাদ আর নেই  Icone বেতাগী পৌরসভার কর্মচারীদের কর্ম বিরতি  Icone বেতাগী উপজেলা চেয়ারম্যানের মা চলে গেলেন না ফেরার দেশে  Icone মুক্তিযোদ্ধা মোশারেফ হোসেন নসু চলে গেলেন না ফেরার দেশে  Icone বেতাগীর ফুলতলা গ্রামের মহি উদ্দিনের বড় ভাইয়ের দ্বারা নির্যাতনের শিকার, থানা পুলিশের ভূমিকা রহস্যজনক দাবী ভিকটিম মহি উদ্দিনের  Icone বেতাগীতে হাতি দিয়ে চাঁদাবাজি  Icone বেতাগীতে পালিয়ে যাওয়া শিক্ষক ও দুই সন্তানের জননী উদ্ধার  Icone বেতাগীতে ছেলের শিক্ষকের হাত ধরে দুই সন্তানের জননী পালিয়ে গেছে  Icone বেতাগী দৈনিক ভোরের কাগজ ও ভোরের অঙ্গীকার প্রতিনিধি'র ইফতার ও দোয়া মোনাজাত  Icone বেতাগীতে স্থানীয় পর্যায়ে এসডিজি বাস্তবায়ন বিষয়ক কর্মশালা