9 December- 2019, 9:13 pm ।। ২৬শে অগ্রহায়ণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

আনন্দ ভ্রমনে সমুদ্র সৈকত কুয়াকাটায় রাত দিন

স্বপন কুমার ঢালী♦

১ জানুয়ারি ২০১৯ । মজনু ভাই আমাকে বলল,’
স্বপন, প্রেসক্লাবের আজ সন্ধ্যা ৭টায় এক বিশেষ সভা তোমার মনে আছে তো? আমি বললাম জি দাদা মনে আছে, সবাইকে ফোনে বলে দিয়েছি। ওই দিন ওই দুই তৃতীয়াংশের বেশি সদস্য উপস্থিত হয়েছিল। সবার সিদ্ধান্ত ছিল ১৮ জানুয়ারি ২০১৯ তারিখ প্রেসক্লাবের আনন্দভ্রমন হবে সমুদ্র সৈকত সাগর কুয়াকাটায়। বেশ কয়েকটি পরিবহন, স্বাস্থ্য ব্যবস্থাপনা, আপ্যায়ন, সাংস্কৃতিক, রেফ্যাল ড্র উপ-কমিটি করে সদস্যদের মধ্যে আনন্দভ্রমন দায়িত্ব বন্টন করে দেওয়া হলো। সভা শেষে প্রেসক্লাবের সভাপতি মজনু ভাই উপস্থিত সকলকে মিষ্টি বিতরণ করে আনন্দভ্রমনের প্রথম পর্বের শুভ উদ্ধোধন করল।
কুয়াকাটা আনন্দভ্রমনের জন্য প্রস্তুতি চলছে। আনন্দভ্রমনের উপ-কমিটি ভালভাবে কাজ করছে। শুধু আমি কম কাজ করেছি। কারণ পারিবারিক একটু সমস্যার কারনে লিপিকা বলল, আমি কিন্তু কুয়াকাটা যাবো না। ‘ শুধু এ কথা বলেই শেষ নয়, আমার সাথে কঠিনভাবে বেকেঁ বসেছে। আর ফোঁস ফোঁস করে। আমি ওকে ভালভাবে বুঝাবার চেষ্ঠা করলাম। কিন্তু কিছুতেই কিছু কাজ হচ্ছে না। দু’দিন আগেও প্রস্তুত ছিল না। আর আমারও বিশ্বাস হচ্ছে না, ১৮ জানুয়ারি কুয়াকাটা আনন্দভ্রমন হবেই। কারন গত দু’বছরে তিন তিনবার করে ডেট চেইনস হচ্ছে। ১৭ জানুয়ারি রাত ৯ টায় মজনু ভাই বলল সকাল ৭টায় বাস ছাড়া হবে। আমি বললাম দাদা আমি একা যাচ্ছি, লিপি যাবে না। দাদা লিপিকে ফোন করল, অনেক কিছু বুঝিয়ে বলল। তোমার যেতে হবে, এবারতো ফ্যামিলি প্যাকেজ…..। এরপর ইরান, রমেন দাদা,ডব্লিউ ও মল্লিকা বৌদি’র ফোন। এরপর আমার ফোন, বোঝ কিছু তোমার বিষয়টা আমি ডব্লিউর সাথে শেয়ার করছি, ওটা কোন সমস্যাই না। তোমার যেতে হবে…….। এতক্ষনে লিপিও যাওয়ার জন্য প্রস্তুত নিচ্ছি।
১৮ জানুয়ারি সকালে সাড়ে ৬টা থেকে ফোন আসতে শুরু হচ্ছে। নুরুল ইসলাম দাদা বলল, সেক্রেটারি ভাবিরে নিয়া বাসস্ট্যান্ডে যাও। আমি লিপিকে নিয়ে বাসস্ট্যান্ডে গেলাম। আমাদের বাস সেখানে নেই। বাস বেতাগী হাই স্কুলের কাছে। আমরা সেখানে গেলাম। নুরুল ইসলাম দাদার রেফারির বাঁশি বাজল।

সভাপতি মজনু দাদার অনুমতি নিয়ে নুরুল ইসলাম দাদার পবিত্র কোরান তেলোয়াত ও আমার গীতা পাঠের মধ্যে দিয়ে আমাদের আনন্দভ্রমনের সুহা পরিবহনের বাসটি কুয়াকাটার উদ্দেশ্য রওনা হল। বেতাগী বাসস্ট্যান্ডে এসে থেমে গেল। ইরান নাস্তা নিয়ে হোসনাবাদ থেকে রওনা দিচ্ছে, ওর জন্য অপেক্ষা করতে হচ্ছে। আর প্রত্যেকেই ওর যত দেরি হচ্ছে তত বকা দিচ্ছে, রাগে সবাই ফোঁস ফোঁস করছে। ইরান বরাবরের মত একটু দেরি করেই আসল, সবাই বলল আজও দেরি করা কাগে তোর…..। বাস ছেড়ে দিল। পথে মল্লিকা বৌদি ও মিসেস মজনু বৌদিকে নেওয়া হল। বাস শুধু কুয়াকটার দিকে শো শো চলছে। বাসের মধ্যে আনন্দ বিনোদন চলছে। বিভিন্ন ধরণের গান, কৌতুক, গল্প, ছড়া, কবিতা আবৃত্তি। আনন্দভ্রমনের পার্টিসেপিটদের প্রাথমিক চিকিৎসার জন্য বমি ও মাথা ব্যাথার ঔষুধ দিচ্ছে বন্ধু সালা উদ্দিন। বাসের মধ্যে সবাই আনন্দ সাগরে ভাসছে। বাস পুরাকাটা ফেরিঘাটে এসে গেছে। সেখানে সবাই নাস্তা চা খেয়ে নিলাম। ফেরিতে বেশ কিছু ছবি তোলা হল। দুপুর ১ টায় কুয়াকাটা পৌছে গেল বাস।

প্রিয় পাঠক,
আমাদের সাথে থাকবেন। আগামীকাল আনন্দকে আপনাদের সাথে হাজির করবই। সবাইকে নিরন্তন শুভেচ্ছা। সবাই ভাল থাকবেন।
ধন্যবাদ

Sharing. . . .




More News Of This Category


সংবাদ শিরোনামঃ
  Icone সাবেক রাষ্ট্রপতি এরশাদ আর নেই  Icone বেতাগী পৌরসভার কর্মচারীদের কর্ম বিরতি  Icone বেতাগী উপজেলা চেয়ারম্যানের মা চলে গেলেন না ফেরার দেশে  Icone মুক্তিযোদ্ধা মোশারেফ হোসেন নসু চলে গেলেন না ফেরার দেশে  Icone বেতাগীর ফুলতলা গ্রামের মহি উদ্দিনের বড় ভাইয়ের দ্বারা নির্যাতনের শিকার, থানা পুলিশের ভূমিকা রহস্যজনক দাবী ভিকটিম মহি উদ্দিনের  Icone বেতাগীতে হাতি দিয়ে চাঁদাবাজি  Icone বেতাগীতে পালিয়ে যাওয়া শিক্ষক ও দুই সন্তানের জননী উদ্ধার  Icone বেতাগীতে ছেলের শিক্ষকের হাত ধরে দুই সন্তানের জননী পালিয়ে গেছে  Icone বেতাগী দৈনিক ভোরের কাগজ ও ভোরের অঙ্গীকার প্রতিনিধি'র ইফতার ও দোয়া মোনাজাত  Icone বেতাগীতে স্থানীয় পর্যায়ে এসডিজি বাস্তবায়ন বিষয়ক কর্মশালা